মাত্র পাওয়া

কমলগঞ্জ পৌর নির্বাচন: প্রচারণা শেষ, রাত পোহালে ভোটগ্রহণ

মোঃ তোফাজ্জল হোসাইন, কমলগঞ্জ থেকে | ১৫ জানুয়ারি ২০২১ | ৬:১৩ অপরাহ্ণ

কমলগঞ্জ পৌর নির্বাচন: প্রচারণা শেষ, রাত পোহালে ভোটগ্রহণ

সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ততই উত্তাপ ছড়াচ্ছে নির্বাচনী মাঠ জুড়ে। চুড়ান্ত লড়াইয়ে নিজেদের স্থান দখলে সরব প্রার্থীরা। তবে নিরব অবস্থানে ভোটাররা। আসন্ন ভোটকে কেন্দ্র করে পৌর এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক ও পাড়া-মহল্লায় মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে। মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌরসভার সর্বত্র বইছে নির্বাচনী হাওয়া। পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনীত প্রার্থীর সাথে আওয়ামী লীগ এর বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় কে শেষ হাসি হাসবেন তা বলা যাচ্ছে না এখনই।

১৯৯৯ সালে কমলগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। কমলগঞ্জ পৌরসভার আয়তন ৯.৮৩ বর্গ কিলোমিটার। ৯ টি ওয়ার্ড এবং ২৯ টি মহল্লা নিয়ে এ পৌরসভাটি গঠিত। বিগত ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর কমলগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্টিত হয়েছিল। এ নির্বাচনে পৌর মেয়র পদের বিপরীতে প্রার্থী হয়েছিলেন ৭ জন। প্রথমবারের মতো আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মো: জুয়েল আহমেদ নৌকা প্রতীক নিয়ে ৩৯৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছিলেন এবং কমলগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামীলীগ প্রার্থী মেয়র পদটি দখলে নেয়। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী  স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকারিয়া হাবিব বিপ্লব নারকেলগাছ প্রতিকে ভোট পেয়েছিলেন ২৮০৪ ও বিএনপি’র প্রার্থী আবু ইব্রাহীম জমসেদ ধানের শীষ প্রতিকে ২১৩৩ ভোট, বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী হাছিন আফরোজ চৌধুরী জগ প্রতিকে ৪২৬ ভোট, রফিকুল আলম ভোট পেয়েছিলেন ৮০, নজরুল ইসলাম ভোট পেয়েছিলেন ৮০ এবং মাসুক আহমদ ভোট পেয়েছিলেন ২৩টি।

এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হয়েছেন ৪ জন। আওয়ামীলীগ থেকে মনোনীত প্রার্থী মো: জুয়েল আহমেদ(নৌকা), বিএনপি থেকে মনোনীত প্রার্থী আবুল হোসেন(ধানের শীষ), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো: আনোয়ার হোসেন(নারিকেল গাছ), আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী হেলাল মিয়া(জগ)।

প্রার্থীরা সরব থাকলেও নিরব রয়েছেন ভোটাররা। ভোট শুরুর প্রথম দিকে চায়ের দোকানে আড্ডা কিংবা চায়ের কাপে ফুঁ দিয়ে যে ভোটাররা আলোচনায় চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছেন। কিন্তু এখন সেই ভোটাররাই নিরব ভূমিকা পালন করছেন। সময় যত ঘনাচ্ছে নির্বাচনের উত্তাপ তত বেশি ছড়াচ্ছে। মেয়র হিসেবে বিজয়ের মালা কে পরবেন তা বলা যাচ্ছে না এখনই । তবে এবারের নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় উৎসবের আমেজ তৈরি হয়েছে।

কমলগঞ্জ পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, এবার মেয়র পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। এবার আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মো: জুয়েল আহমেদের সাথে লড়াইয়ে আছেন বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো: আনোয়ার হোসেন ও হেলাল মিয়া । তিনজনই হেভিওয়েট প্রার্থী। তবে কিছুটা নিরব প্রচার প্রচারণা চালিয়েছেন বিএনপির প্রার্থী আবুল হোসেন। এরা এই চার প্রার্থীই দীর্ঘদিন থেকে রাজনীতি করছেন।  সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে বলে আশাবাদী ভোটাররা।
কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব এর সভাপতি সুব্রত দেবরায় সঞ্জয় জানান, আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থীও লড়ছেন মেয়র পদে। এরা চার জনই দীর্ঘদিন থেকে রাজনীতি করছেন। প্রার্থীদের নিয়ে ভোটাররা দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে গেছেন। উভয় দলের দলীয় নেতাকর্মী ছাড়া সাধারণ ভোটাররা মনে করছেন সব প্রার্থীই পরিচিত মুখ, কাকে রেখে কাকে খুশি করবেন। এই দ্বিধাদ্বন্দ্বের কারণেই হয়তো সাধারণ ভোটাররা নিরবতা পালন করছেন। ভোটারদের এই নিরবতা মেয়র পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস দিচ্ছে।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আরিফুর রহমান বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে থানা পুলিশ তৎপর, যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা রোধে পুলিশ সতর্ক রয়েছে।

সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার জানান, সুষ্ট ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে সকল প্রস্তুতি প্রায় শেষ। পৌরসভার ০৯টি ওয়ার্ডে ০৪ জন মেয়র, ৩১ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ১১ জন মহিলা কাউন্সিলরসহ মোট ৪৪ জন প্রার্থী চূড়ান্ত ভোট যুদ্ধে আছেন। আগামী ১৬ জানুয়ারি কমলগঞ্জ পৌরসভার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ব্যালট পেপারে ভোট গ্রহণ হবে এ নির্বাচনে।
কমলগঞ্জ পৌরসভা ০৯টি ওয়ার্ডের মোট ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৯০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ৬ হাজার ৮শত ৮৭ জন ও মহিলা ভোটারের সংখ্যা ৭ হাজার ১৮ জন। ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি সেন্টারের ৪২টি কক্ষে এবার ভোট গ্রহণ হবে।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8