মাত্র পাওয়া

নানা অভিযোগে অভিযুক্ত খাগড়াছড়ির বিতর্কিত পৌর কাউন্সিলর আব্দুল মজিদ

| ২৯ জুলাই ২০২০ | ৪:০৪ অপরাহ্ণ

নানা অভিযোগে অভিযুক্ত খাগড়াছড়ির বিতর্কিত পৌর কাউন্সিলর আব্দুল মজিদ

শাহাদাত হোসেন জিসান, খাগড়াছড়িঃ খাগড়াছড়ি পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাবেক ছাত্রশিবির নেতা আব্দুল মজিদের বিরুদ্ধে অর্থ তছরুপ, পাওনা টাকা পরিশোধে টালবাহানা, প্রতারণাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগের সত্যতা সম্পর্কে যাচাই করতে ভুক্তভোগী ৬ নং ওয়ার্ড বাসিন্দা মোঃ ওবায়দুল হকের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, কাউন্সিলর মজিদ ২০১৬ সালে আমার কাছ থেকে সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা ধার নেয়। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে টাকা দিচ্ছি, দেবো করে করে টাকা ফেরত দিতে টালবাহানা শুরু করে। একপর্যায়ে আমি তার নামে মামলা করতে বাধ্য হই।মামলার সি.আর নং-১৮১।

৪ নং ওয়ার্ড মাষ্টারপাড়ার বাসিন্দা মোঃ ফারুক বলেন, জমি কিনে দেওয়ার নাম করে প্রায় চারবছর আগে কাউন্সিলর মজিদ আমার কাছ থেকে সাড়ে তের লক্ষ টাকা নেয়। অনেক দেনদরবার করে তার কাছ থেকে কিছু টাকা নিই। বর্তমানে আমি তার কাছে আরো সাড়ে নয় লক্ষ টাকা পাবো।

২ নং ওয়ার্ড সবুজবাগের বাসিন্দা মোঃ মাইনুদ্দিন বলেন, ২ দিন পরে ফেরত দেওয়ার কথা বলে কাউন্সিলর মজিদ আমার থেকে ২ লক্ষ টাকা নেয়। কিন্তু দুই দিন পর টাকা ফেরত দিতে টালবাহানা শুরু করে। পরবর্তীতে অনেক কষ্টে এক লক্ষ টাকা নিতে পারলেও এখনো আমি তার কাছে আরো এক লক্ষ টাকা পাবো। প্রায় চার মাস যাবৎ টাকার জন্য আমি তার পিছু পিছু ঘুরতাছি।

ভুক্তভোগী চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী রাসেল বলেন, কাউন্সিলর মজিদ ব্যাবসার উদ্দেশ্যে আমার কাছ থেকে সাড়ে একুশ লক্ষ টাকা নেয়। কিন্তু টাকা পরিশোধের নির্ধারিত সময় পার হলেও এখনও সে আমার টাকা পরিশোধ করেনি।

খাগড়াছড়ি সদরের হাসপাতাল গেইট অফিস টিলার বাসিন্দা ভুক্তভোগী মোঃ জমিরউদ্দীন বলেন, আমি আমার স্ত্রীর কাছ থেকে তিন লক্ষ টাকা ও পুলিশ লাইন স্কুলের শিক্ষক দীলিপ স্যারের কাছ থেকে ১ লক্ষ টাকা নিয়ে কাউন্সিলর মজিদকে ধার দিই৷ পাওনা টাকা পরিশোধের নির্ধারিত সময় পার হলে নুতন করে সে আমার কাছ থেকে সময় নেয়।

এছাড়াও ৫নং ওয়ার্ড ইসলামপুর বাসিন্দা আবদুল হামিদ কাউন্সিলর মজিদের কাছ থেকে সতের লক্ষ টাকা , ইসলামপুর বায়তুল আমান জামে মসজিদের ফান্ডের টাকা তছরুপ, ২০১৮ সালে খাগড়াছড়ি জেলা কারাগারের সরকারি জমি দখলের চেষ্টা ও জেলারকে মারধর এবং ২০১৯ সালে সংগঠনের নাম দিয়ে পাঁচ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে তার বিরুদ্ধে ।

এই প্রসঙ্গে ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মজিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই ব্যাপারে সদুত্তর দিতে পারেন নাই। এরপর নানা জায়গা থেকে রিপোর্ট না লেখার জন্য তদবির শুরু করে কাউন্সিলর মজিদ এবং ভুক্তভোগীদেরকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করছেন বলে জানা যায়।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আকাইর্ভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

আজকের দিন-তারিখ

  • বৃহস্পতিবার (দুপুর ২:০৯)
  • ১৩ই আগস্ট ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ২৩শে জিলহজ ১৪৪১ হিজরি
  • ২৯শে শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)

হাসবি রাব্বি জাল্লাল্লাহ

চোখের জল ধরে রাখা অসম্ভব:– ফজলুর রহমান বাবু

error: Content is protected !!