মাত্র পাওয়া

অনুদান সংগ্রহের জন্য চালু হলো ডিজিটাল ক্রাউডফান্ডিং প্ল্যাটফর্ম ‘একদেশ’

| ১৫ মে ২০২০ | ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অনুদান সংগ্রহের জন্য চালু হলো ডিজিটাল ক্রাউডফান্ডিং প্ল্যাটফর্ম ‘একদেশ’

করোনাভাইরাসের বিরাজমান পরিস্থিতিতে আর্তমানবতার সেবায় দেশের বিভিন্ন  শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অনুদান ও আর্থিক সহায়তা সংগ্রহের জন্য ডিজিটাল ক্রাউডফান্ডিং প্ল্যাটফর্ম ‘একদেশ’ চালু করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক শুক্রবার অনলাইন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ব্র্যাক, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন, সেন্টার ফর যাকাত ম্যানেজমেন্ট, সিআরপি, সাজেদা ফাউন্ডেশন এই অনুদান গ্রহিতা হিসেবে যুক্ত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘একদেশ’ একটি সেতু। এটি দাতা ও গ্রহিতার মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করবে।’ তিনি বলেন, দুর্ভিক্ষ খাদ্যের অভাবে হয় না বরং সুষ্ঠু বন্টনের অভাবে হয়ে থাকে। সারা দেশের মানুষের যাকাত এবং আর্থিক অনুদানের এই সেতুবন্ধন তৈরির মাধ্যমে সুষ্ঠু বন্টনের পথে এগিয়ে যাব আমরা। মানুষ এই প্ল্যাটফর্মটির মাধ্যমে অনুদান দিতে পারবেন। দেশের প্রথম ক্রাউডসোর্সিং প্ল্যাটফর্মটির কার্যক্রম শুরুর মাধ্যমে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার একটি জায়গা তৈরি হলো বলে তিনি উল্লেখ করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে প্রত্যেকে তাঁর যাকাত বা অনুদান ঠিক যেখানে প্রদান করতে চান সেখানেই প্রদান করতে পারবেন। এই সেতুবন্ধনকে করোনা পরবর্তীতে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগের বিভিন্ন বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও কাজে লাগানোর পরামর্শ দেন তিনি।

যাকাত কিংবা আর্থিক অনুদান প্রদান করতে একদেশ ওয়েবসাইট https://ekdesh.ekpay.gov.bd/ প্রবেশ করতে হবে অথবা ‘একদেশ’ অ্যাপের মাধ্যমেও প্রদান করা যাবে।

ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড কিংবা মোবাইল পেমেন্ট বা ডিজিটাল ওয়ালেটের মাধ্যমে নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে যাকাত কিংবা অনুদান দেওয়ার এই প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে এটুআই। ব্যাংক এশিয়ার সহযোগিতায় সুইফ কোডের মাধ্যমেও জাতীয় পেমেন্ট গেটওয়ে একপে-এর মাধ্যমে অনুদান দেওয়া যাবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যস্থতায় রেমিট্যান্সের টাকাও একদেশ অ্যাপের মাধ্যমে মানবিক তহবিল গড়ে তুলতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন প্রবাসীরাও।

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম, এটুআই-এর পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী, এটুআই প্রকল্প পরিচালক মো. আব্দুল মান্নান, বাংলাদেশ স্কাউটের প্রেসিডেন্ট আবুল কালাম আজাদ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ, ব্র্যাকের সিইও আসিফ সালেহ, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কিশোর কুমার দাস, সাজেদা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জাহিদা ফিজা কবির, ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা শরিফুল ইসলাম, ব্যাংক এশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরফান আলী, সিআরপি প্রধান নির্বাহী শফিকুল ইসলাম বক্তব্য দেন।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8