মাত্র পাওয়া

বউ- শ্বাশুড়ির ঝগড়া, সন্তান এসে মাকে মারধর, মায়ের আত্মহত্যা

| ০৬ জুন ২০২১ | ৫:৩১ অপরাহ্ণ

বউ- শ্বাশুড়ির ঝগড়া, সন্তান এসে মাকে মারধর, মায়ের আত্মহত্যা

অভিযুক্ত সন্তান: সাদ্দাম হোসাইন

বউ শ্বাশুড়ি ঝগড়া করছে, বাকবিতন্ডা হচ্ছে এমন সময় সন্তান এসে বউকে মারধর করে। ঝগড়া থামেনা এক পর্যায়ে মাকেও চড় থাপ্পর দেয় ওই সন্তান । মা এই অপমান সহ্য করতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যা করে। এমন ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুরে। আত্মহননকারী হাজেরা বেগম উপজেলার নগর হাওলা গ্রামের আব্দুল বারেকের স্ত্রী। অভিযুক্ত সন্তানের নাম শেখ সাদ্দাম হোসাইন।

গত বৃহস্পতিবার (৩ জুন) সকাল ১০ টায় হাজেরা বিষপানে আত্মহত্যা করেন পরে ওইদিন পোস্ট মর্টেমের পর কেউ কোনও অভিযোগ না দেয়ায় তাকে নিজ বাড়িতে দাফন করা হয়।

এলাকাবাসীর তথ্যসূত্রে জানা যায়, বিয়ের তিন বছর পার হয়েছে সাদ্দামের অথচ স্ত্রীর সাথে বনিবনা হয়নি। পারিবারিক কলহ লেগেই থাকে। স্ত্রী সাদিয়ার শুধু যে স্বামীর সাথে অমিল তা কিন্তু নয় শ্বাশুড়ীর সাথেও ঝগড়া হয় মাঝে মধ্যেই। দু’দিন আগেও ঝগড়া হয়েছিল বউ শ্বাশুড়ির। সেই ঝগড়াকে কেন্দ্র করে তুমুল বাকবিতন্ডায় জড়ায় সাদ্দামের স্ত্রী। সাদ্দাম ঝগড়া থামানোর উদ্দেশ্যে তার স্ত্রীকে মারধর করে। এক পর্যায়ে মায়ের গালেও চড়থাপ্পড় মারে। তারপর সাদ্দামের মা বিষপানে আত্মহত্যা করেন। সন্তানের হাতে মানুষের সামনে মার খাওয়ার অপমান সইতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করেছেন প্রতিবেশীরা।

ওই ঘটনার পর এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবরটি ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় জড়িত হাজেরার সন্তান সাদ্দামের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন অনেকেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী জানায়, সাদ্দাম ছাত্রলীগ করে । স্থানীয় এমপির সাথে ফেসবুকে একাধিক ছবিও আছে। অনেক ক্ষমতা সাদ্দামের যে কারণে কেউ বাদী হতে সাহস পায়নি। সাদ্দামের কিছুই হবে না।

এদিকে সাদ্দাম তার মাকে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি আমার স্ত্রীকে মেরেছি। মাকে মারিনি। সংবাদকর্মীদের তথ্য সংগ্রহে ক্ষিপ্ততা প্রকাশ করে বলেন, সংবাদ করলে কি যে মরে গেছে সে ফিরে আসবে ?

সাদ্দামের স্ত্রী সাদিয়া জানান, শাশুড়ি আমাকে আগে থেকেই সহ্য করতে পারত না । সব সময় আমার কাজে দোষ খুঁজতো। এই নিয়ে আমাদের মাঝে প্রায়ই কলহ লেগেই থাকত। একপর্যায়ে আমি বাপের বাড়িতে চলে যেতে চাইলে আমাকে যেতে দেয়া হয়নি। ওইদিন সকালে রান্নাবান্নার কথা বললে আমি রান্না করবোনা বলে জানাই। এতে আমার শাশুড়ির সাথে আমার কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আমার স্বামী আমাকে মারধর করে এবং শাশুড়ি ফিরাইতে আসে। এসময় ঝগড়ার কারণ হিসেবে শাশুড়ীকে দোষারোপ করা হয়, এটাই ছিল আমার শাশুড়ীর অভিমান। যে কারণে তিনি সুইসাইড করেছেন।

এ বিষয়ে গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামকে একাধিকবার ফোন করলে তিনি রিসিভ করেননি।

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, এ বিষয়ে কেউ বাদী হয়ে অভিযোগ দাখিল করেনি। তাই পোস্ট মর্টেমের পর কবর দিয়েছে স্বজনেরা। এর বাইরে কিছু জানি না।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8
  • Our Visitor

    0 0 2 2 1 1
    Users Today : 26
    Users Yesterday : 47
    Users Last 7 days : 125
    Users Last 30 days : 566
    Users This Month : 104
    Users This Year : 2210
    Total Users : 2211
    Views Today : 29
    Views Yesterday : 99
    Views Last 7 days : 271
    Views Last 30 days : 1098
    Views This Month : 200
    Views This Year : 3281
    Total views : 3282
    Who's Online : 0
    Your IP Address : 54.144.55.253
    Server Time : 2021-12-05