• আক্রান্ত

    ৭১৫,২৫২

    সুস্থ

    ৬০৮,৮১৫

    মৃত্যু

    ১০,২৮৩

    ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট
  • মাত্র পাওয়া

    রাকিব হাসানের দুটি কথা বাদে সব মিথ্যা, দাবি তামিমার

    | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ৬:৪৯ অপরাহ্ণ

    রাকিব হাসানের দুটি কথা বাদে সব মিথ্যা, দাবি তামিমার

    চলমান বিতর্ক-সমালোচনার জবাব দিতে বুধবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে করলেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমা তাম্মি। যেখানে তামিমা দাবি করেন তার আরেক স্বামী রাকিব হাসানের দুটি কথা বাদে সব মিথ্যা। এক তাদের বিয়ে এবং এই দম্পতির ৮ বছরের এক কন্যাসন্তান। এছাড়া রাকিবের আনা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেছেন তামিমা। তাদের মধ্যে ডিভোর্সও হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

    ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে বুধবার দুপুরে তামিমার আরেক স্বামী রাকিব হাসান বাদী হয়ে নাসির দম্পতির নামে একটি মামলা করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে নথি পর্যালোচনা শেষে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন। এরপরেই বিকেলে বিয়ের পর প্রথম গণমাধ্যমের সামনে আসেন নাসির দম্পতি। যেখানে নাসির এবং তামিমা দুজনেই জানান, আইন মেনেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তারা।

    তামিমা রাকিবকে তার স্বামী পরিচয় দিয়ে বলেন, আমার সাবেক স্বামী রাকিবকে তালাক দিয়েই, ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছি আমি। আর বিয়ে ও সন্তান ছাড়া আমার নামে আনা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা। এসময় নাসির গণমাধ্যমকে অনুরোধ করে বলেন, ভুল সংবাদ যাতে মিডিয়াকর্মীরা প্রকাশ না করে।

    এদিকে, রাকিবের করা মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয় তামিমা তাম্মি ও রাকিবের বিয়ে হয় ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি। তাদের ৮ বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। মামলায় অভিযোগ করা হয়, রাকিবের সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক চলমান অবস্থাতেই নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা, যা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ অবৈধ। আর তামিমাকে প্রলুব্ধ করে নাসির নিজের কাছে নিয়ে গেছেন। তামিমা ও নাসিরের এমন অনৈতিক ও অবৈধ সম্পর্কের কারণে রাকিব ও তার ৮ (আট) বছর বয়সী শিশু কন্যা মারাত্মভাবে মানসিক বিপর্যস্ত হয়েছেন। আসামিদের এহেন কার্যকলাপে রাকিবের চরমভাবে মানহানি হয়েছে; যা তার জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

    উল্লেখ্য, ১৪ ফেব্রুয়ারি বিয়ে করেছেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন। বিয়েকে স্মরণীয় করতে ভালোবাসা দিবসটিকেই বেছে নেন তিনি। নাসিরের স্ত্রীর নাম তামিমা তাম্মি। পেশায় বিমানবালা। কিন্তু বিয়ের সপ্তাহ পার না হতেই চরম বিতর্ক শুরু হয়েছে।

    শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) নাসিরের স্ত্রীকে নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য বেরিয়ে এসেছে। সকাল থেকে সামাজিকমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে তামিমার আরেক স্বামী ও সন্তানের ছবি। রাকিব নামে ওই স্বামীর সঙ্গে তার বিয়ে হয় ১১ বছর আগে। সেই ঘরে কন্যা সন্তানের বয়স এখন নয় বছর।

    নাসিরের সঙ্গে বিয়ের ভিডিও ও খবর ছড়িয়ে পড়ার বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় এ জিডিটি করেন বলে নিশ্চিত করেন উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি শাহ মো. আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস।

    জিডিতে রাকিব উল্লেখ করেন, তামিমার সঙ্গে এখনো তার ডিভোর্স হয়নি। ডিভোর্স ছাড়া স্ত্রী কিভাবে অন্যের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন সেই প্রশ্ন তার। এজন্য স্ত্রীর বিরুদ্ধে জিডি করেছেন তিনি। পরে জিডির কপি ও তাদের বিয়ের কাবিন নামাও সামাজিকমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। জিডিতে রাকিব অভিযোগ করেছেন, তার সঙ্গে সংসার করা অবস্থায় তামিমা গোপনে আরেকজনকে। সেখানে ছয়মাস সংসারও করেন।

    জিডি সূত্রে আরও জানা যায়, তামিমা ছয় মাস যে ছেলের সঙ্গে সংসার করেছেন ওই ছেলের নাম অলক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি অডিও ক্লিপে এই ছেলের বিষয়েই নাসির ও রাকিবের মধ্যে কথোপকথন হয়।

    শনিবার রাকিব তামিমা ও তার সম্পর্কের নানা বিষয়ে কথা বলেছেন গণমাধ্যমের সঙ্গে। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, তামিমাকে তিনি দুইবার বিয়ে করেছেন। অর্থাৎ তামিমার জীবনে তিন স্বামী (নাসির হোসেন, অলোক ও রাকিব) এলেও বিয়ে করেছেন চারবার।

    রাকিব বলেন, ‘প্রেম করে বিয়ে করেছিলাম। সে আসলে আমাকে চাপ দিয়েই বিয়ে করেছিল। প্রথমে আমরা টাঙ্গাইলে কোর্ট ম্যারেজ করেছিলাম। পরে আমরা বিয়ে করি বরিশালে। আমার বউকেই দুইবার বিয়ে করেছি। এরপর সংসার শুরু করি।’

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

    Calendar

    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  

    এক ক্লিকে বিভাগের খবর

    div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8
  • বাংলাদেশে

    আক্রান্ত
    ৭১৫,২৫২
    সুস্থ
    ৬০৮,৮১৫
    মৃত্যু
    ১০,২৮৩
    সূত্র: আইইডিসিআর

    বিশ্বে

    আক্রান্ত
    ১৩৯,৭৩৮,৪৯০
    সুস্থ
    ৭৯,৬৬১,২০৯
    মৃত্যু
    ২,৯৯৬,৪৬০